শিরোনামঃ-

» সন্ত্রাসী হামলায় নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন আখালিয়ার আফিয়া বেগম ও তাঁর পরিবার

প্রকাশিত: ০৬. সেপ্টেম্বর. ২০২২ | মঙ্গলবার

স্টাফ রিপোর্টারঃ

সিলেটের আখালিয়া নতুন বাজার এলাকায় সন্ত্রাসী হামলা, শ্লীলতাহানি, ভাংচুর, লুটপাট ও হত্যাচেষ্টার ঘটনার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে এক ভুক্তভোগী পরিবার।

সোমবার (৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সৈয়দ রাগীব আলী মিলনায়তনে স্বপরিবারে উপস্থিত হয়ে রাখা দীর্ঘ বক্তব্যে ও মামলার এজাহারে আফিয়া বেগম দাবী করেন যে ১নং বিবাদী গিয়াস মিয়া এলাকায় প্রভাবশালী লোক। তাঁর বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।

পূর্ব বিরোধের জের ধরে গত ২৫/০৮/২০২২ তারিখে গিয়াস মিয়া (৪০), রাব্বি (১৮), আব্দুল মজিদ (২৮) ও আজিদ (২০) সহ অজ্ঞাত আরো ৪/৫ জন মিলে ঘটনার দিন সন্ধ্যা ৭টার দিকে দেশীয় তৈরী ধারালো অস্ত্রসস্ত্র সহকারে আমার বসতঘরে এসে হামলা চালায়। একপর্যায়ে ১নং বিবাদী গিয়াস মিয়া হাতে থাকা ধারালো রামদা দিয়ে আঘাত করে গুরুতর জখম করে। ২নং বিবাদী রাব্বির হাতে থাকা ছুরি দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে আমার ছেলে রাব্বিকে উপুর্যুপরি আঘাত করলে তার দুই হাত কেটে যায়। তখন আমার ছেলেকে রক্ষা করতে আমি ও আমার বড় ছেলের স্ত্রী সুবর্ণা আক্তার এগিয়ে এসে বাঁধা দিলে হামলাকারীরা সবাই আমাদের কাপড় টানা হেছড়া করে আমাদের শ্লীলতাহানি ঘটায় ও আমাদেরকে লাঠি-সোঁটা দিয়ে মারধর করতে থাকে। ১নং বিবাদী আমার বৃদ্ধ মায়ের কোলে থাকা ১৮ মাস বয়সী নাতি নাবিলা ইসলামকে জোর করে ধরে এনে তার কোমরে লাথি মেরে মাটিতে ফেলে দেয়। তারা আমাদের ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করে ও ২নং আসামী রাব্বি আমার বড় ছেলের স্ত্রী সুবর্ণা আক্তারের গলায় পরিহিত আনুমানিক ৪০ হাজার টাকা মূল্যের আধা ভরি স্বর্ণের একটি চেইন ছিনিয়ে নিয়ে যায় এবং ১নং আসামী শোকেসের ড্রয়ারে রক্ষিত গাড়ী কেনার ১৫ হাজার টাকা নিয়ে যায়, বলেও দাবী করেন ভুক্তভোগী আফিয়া বেগম।

তিনি জানান বিবাদীদের অপকর্মের বিরুদ্ধে এলাকার কেউ ভয়ে কথা বলতে চান না। থানায় এজাহার দায়ের করলেও এখন পর্যন্ত আসামীদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

তিনি বলেন আমি অসহায় একজন মানুষ, ছোটখাটো একটি চাকুরী করে কোনরকম জীবিকা নির্বাহ করি। কিন্তু বিবাদীদের উৎপাতে আমার পরিবারের স্বাভাবিক জীবন বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। স্কুলে পড়ুয়া ছোট ছেলেকে ভয়ে স্কুলে পাঠাতে পারছি না। আমরা চরম অনিরাপত্তার মধ্যে দিন কাটাচ্ছি। ভুক্তভোগী আফিয়া বেগম মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও প্রশাসনের কাছে এই ঘটনার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৭৯ বার

Share Button

Callender

May 2024
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031