শিরোনামঃ-

» ২১ জেলার সাথে সিলেটে উদ্বোধন হয়েছে ডিজিটাল রেকর্ড রুম

প্রকাশিত: ২৩. ডিসেম্বর. ২০২০ | বুধবার

নিজস্ব রিপোর্টারঃ

সারাদেশের সাথে সিলেটে ও চালু হয়েছে ডিজিটাল রেকর্ড রুম।

আজ বুধবার (২৩ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ২১ জেলার সাথে সিলেটের ডিজিটাল রেকর্ড রুমের নাগরিক সেবা ডিজিটালাইজেশন কার্যক্রম উদ্বোধন করেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী।

এসময় ভুমি মন্ত্রী বলেন, আমি পূর্ণ মন্ত্রনালয়ে দায়িত্ব পাওয়া পর প্রতিজ্ঞা করছিলাম আমরা ভালো কাজ করবো এবং সেটি হয়েছে। আমরা ভালো অবস্থানে আছি আমরা সকল মন্ত্রনালয়ে থেকে টপ থ্রি তে অবস্থান করছি।

মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিকনির্দেশনায় ভূমি মন্ত্রনালয় এগিয়ে যাচ্ছে আরো এগিয়ে যাবে । আমরা কথায় নয় কাজে বিশ্বাসী। মানুষ ঘরে বসে কাজ করতে চায় বলে ভূমির কার্যক্রম ডিজিটাল হচ্ছে। তাই সকল কর্মকর্তাদের আন্তরিক হয়ে কাজ করতে হবে।

সকাল সাড়ের এগারোটায় সিলেট জেলা প্রশসাকের কনফারেন্স রুমে উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম, মোঃ আসলাম উদ্দিন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আল আজাদ, সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি মুহিত চৌধুরী, সহকারী কমিশনার উম্মে সালিক রুমাইয়া সহ জেলা প্রশাসেনের কর্মকর্তা ও বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকবৃন্দ।।

ভুমি মন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল রেকর্ড রুমের মাধ্যমে ঘরে বসেই অনলাইনে আবেদন এবং ফি জমা দিয়ে নির্ধারিত সময় এবং স্থান থেকে খতিয়ানের সার্টিফাইড কপি গ্রহণ করা যাবে।

ডিজিটাল রেকর্ড রুম ব্যবস্থায় অনলাইনে আবেদন এবং অনলাইনে ফি দেয়ার মাধ্যমে নির্ধারিত সময় ও স্থান থেকে খতিয়ানের সার্টিফাইড কপি নেয়া যাবে বলেও জানান মন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘সব মিলিয়ে সারাদেশে এখন পর্যন্ত ৩ কোটি ৯৮ লাখ ৫৮ হাজার ১১৩টি খতিয়ান অনলাইনে চূড়ান্তভাবে উন্মুক্ত করা হয়েছে। ইপর্চা, ল্যান্ড, ডিএলএসআর, মিনল্যান্ড এই চারটি ওয়েবসাইট বা জাতীয় তথ্য বাতায়নের সকল জেলা বাতায়নের ওয়েবসাইট থেকে নাগরিক অনলাইনে এই সেবাটি গ্রহণ করতে পারছে। ডিজিটাল রেকর্ড রুম কার্যক্রমের ভেন্ডর হিসেবে কারিগরি সহায়তা করেছে সফট বিডি লিমিটেড।’

এ সময় ভূমি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাকছুদুর রহমান পাটওয়ারীসহ মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা অনলাইনে যুক্ত ছিলেন।

প্রাথমিকভাবে ঢাকা, ফরিদপুর, নরসিংদী, গোপালগঞ্জ, টাঙ্গাইল, শরীয়তপুর, কিশোরগঞ্জ, মাদারীপুর, নারায়ণগঞ্জ, রাজবাড়ী, মানিকগঞ্জ, চট্টগ্রাম, সিলেট, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, ময়মনসিংহ, নেত্রকোণা, পঞ্চগড়, কুড়িগ্রাম, রংপুর ও সিরাজগঞ্জে ডিজিটাল রেকর্ড রুম চালু করা হয়েছে বলে অনুষ্ঠানের জানানো হয়।

এ বিষয়ে ভূমিমন্ত্রী বলেন, ‘আগামী ৬ থেকে ৭ মাসের মধ্যে পার্বত্য তিন জেলা ছাড়া বাকি ৪০ জেলার রেকর্ড রুমকে ডিজিটাল রেকর্ড রুম হিসেবে চালু করা হবে।’

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, প্রাথমিক পর্যায়ে ৬১ জেলায় জেলা তথ্য সেবা কেন্দ্রের মাধ্যমে রেকর্ডরুমের সেবা প্রদান করা হতো। পরবর্তী সময়ে ৪টি জেলায় ইলেক্ট্রনিক ল্যান্ড রেকর্ড সিস্টেম (ইএলআরএস) চালু করা হয়। ভূমি মন্ত্রণালয়ের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় ভূমি রেকর্ড ও মৌজা ম্যাপ ডিজিটাইজেশন প্রকল্পের মাধ্যমে ৫৫টি জেলায় খতিয়ান ডিজিটাইজেশন কার্যক্রম শুরু করা হয়। ওই প্রকল্পের ডাটা এন্ট্রির জন্য অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) থেকে ডিজিটাল রেকর্ড রুম (ডিআরআর) নামে সিস্টেম তৈরি করে দেয়া হয়। এছাড়াও ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদফতরের ব্যবস্থাপনায় ৬টি জেলার ৪৬টি উপজেলায় ডিজিটাল অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের (ডিএলএমএস) মাধ্যমে রেকর্ড ডিজিটাইজেশন কার্যক্রম চালু করা হয়।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৪৬৯ বার

Share Button

Callender

February 2024
M T W T F S S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
26272829