শিরোনামঃ-

» মুক্তাক্ষর আবৃত্তি শিল্পীর পাশাপাশি সৃষ্টি করছে নবীন ট্রেইনার

প্রকাশিত: ০৪. ডিসেম্বর. ২০১৯ | বুধবার

স্টাফ রিপোর্টারঃ

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার দেশের প্রতিটি উপজেলায় আঞ্চলিকতাকে পাশে রেখে বাংলা শুদ্ধ উচ্চারণ, প্রমিত বাংলার কথোপকথোন ও শ্রুতিমধুর বাচন ভঙ্গি শিক্ষণের দায়িত্ব হাতে নেয় মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর। কিশোর কিশোরী ক্লাব স্থাপন প্রকল্পের আওতায় সিলেট বিভাগের অন্তর্গত উপজেলাসমূহের আবৃত্তি শিক্ষক পদে মেধার ভিত্তিতে নিয়োগপ্রাপ্ত হন মুক্তাক্ষরের চার শাখার চারজন দক্ষ শিক্ষার্থী।

গত ২৭ নভেম্বর ১৯-৩২২ স্মারক নং এর নিয়োগ পত্র পেলে আবৃত্তি শিক্ষক হয়ে যোগদান করেন মুক্তাক্ষরের সিলেট শাখার প্রিয়াশ্রী কর পিউ, ছাতক শাখার চৈতী মালাকার, বিয়ানীবাজার নয়াগ্রাম শাখার জয়শ্রী চন্দ ঝুমা ও বিয়ানীবাজার দাসগ্রাম শাখার জয়া রানী কর জুঁই।

মুক্তাক্ষরের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক বিমল কর বুধবার (৪ ডিসেম্বর) গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, ২০১০ সাল থেকে সিলেটের বিভিন্ন উপজেলায় আবৃত্তি প্রচারে ও প্রসার ঘটাতে পেরে আজ নতুন প্রজন্ম আবৃত্তি নিয়ে সুনামের সহিত আয়ের সাথে চর্চা করতে পারছে।

প্রতিটি অভিভাবক সত্যিকারের আবৃত্তি চর্চায় শিশু-কিশোরদের নিয়ে এগিয়ে এলে সত্যি সত্যি আগামী প্রজন্মকে জাগাতে পারবে এবং পেশা হিসেবেও একদিন সবাই নিতে পারে। তবে তার আগে প্রয়োজন সঠিক শব্দ প্রয়োগের কলা কৌশল জানা, উচ্চারন টেকনিক জানা ও শব্দ নিক্ষেপের মূল কারণ জানা। দল ভারী করার জন্য আবৃত্তি শিক্ষা যেন না হয়। সঠিক দক্ষ প্রশিক্ষকের কাছ থেকে শিখে নিজেকে দেশের পাশে আত্মনিয়োগ করার লক্ষ্য সবার যেন থাকে।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কিশোর কিশোরী ক্লাব, আবৃত্তির গুণগত মান রক্ষার্থে উচ্চারণে সফলতা অর্জনের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেওয়ায় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা হয়।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৬৩ বার

Share Button

Callender

January 2020
M T W T F S S
« Dec    
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031