শিরোনামঃ-

» বালাগঞ্জে আকস্মিক বন্যায় ৫টি ইউনিয়ন প্লাবিত; যোগাযোগ ব্যবস্থা ব্যাহত

প্রকাশিত: ১৫. জুলাই. ২০১৯ | সোমবার

বালাগঞ্জ প্রতিনিধি মোমিন মিয়াঃ
টানা বৃষ্টিপাত ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ডলে দেশের বিভিন্ন জায়গায় মত বালাগঞ্জেও বন্যার প্রকোপ দেখা দিয়েছে।
টানা বৃষ্টিপাতের কারণে কুশিয়ারা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার উপরে প্রবাহিত হচ্ছে।এরফলে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দী হয়ে সিলেটের বালাগঞ্জ উপজেলায় ৬টি ইউনিয়নের মধ্যে ৫টি ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ায় পানিবন্দি হয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছে  মানুষ।
সরেজমিনে দেখা যায়, গত কয়েক দিনের টানা বর্ষণে কুশিয়ারা নদীর তীরঘেঁষা বালাগঞ্জ সদরের স্বাস্থ্য কমপ্রেক্সের সম্মুখের রাস্তা, বাজারের ভেতরের রাস্তা, বালাগঞ্জ সরকারি ডিএন উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ, তয়রুন নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভেতর, প্রবেশের রাস্তা ও মাঠ, উপজেলা প্রশাসনের মূল সড়ক ও উপজেলা প্রশাসনের মাঠ পানিতে ডুবে গেছে এবং উপজেলা প্রশাসনিক ভবনের নিচতলার অফিসগুলোর ভেতরে পানি প্রবেশ করেছে।
সেই সাথে দেখা দিয়েছে পানিবাহীত নানা রোগ। যার ফলে বন্যা আক্রান্ত এলাকাগুলোতে  স্বাস্থ্য ঝুঁকির প্রভাব পড়েছে।
পূর্ব পৈলনপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন জানান, কুশিয়ারা ডাইকের প্রায় ১৫ জায়গায় ভাঙ্গন দেখে দিয়েছে। যার প্রভাবে ১৩টি গ্রাম প্লাবিত হয়ে ১০ হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে।
বালাগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মফুর বলেন, শেরপুর থেকে বালাগঞ্জ বাজারের কুশিয়ারা ডাইকের ভাঙ্গনে হামছাপুর, জালালপুর, গালিমপুর গ্রামের বন্যা পতিরোধক বাঁধের ভাটপাড়া, পৈলনপুর, ফাজিলপুর, পূর্ব ইছাপুর এ সকল স্থান ডাইকের বাধ ভেঙে পানি ভেতরে প্রবেশ করছে সেই সঙ্গে বালাগঞ্জের সাথে পূর্ব পৈলনপুরের সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।
একি সাথে ফেঞ্চুগঞ্জ থেকে বালাগঞ্জ রোডের ডাইকের বাজার সংলগ্ন রাস্তা ফাটল দেখা দেয়ায় যুকিপূর্ন ভাবে গাড়ি চলাচল করছে। উপজেলার ৯টি প্রাইমারি ও ৪টি মাধ্যমিক স্কুল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ৩টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে ইতোমধ্যে গালিমপুর হাইস্কুল ও পূর্ব  পৈলনপুর হাইস্কুলে বন্যার্ত মানুষজন আশ্রয় নিয়েছেন এবং পূর্ব গৌরিপুর বি কে এম হাই স্কুলে মানুষ আসতে শুরু করেছেন।
প্রশাসনিকভাবে ৫ টন চাল ও ১০০ প্যাকেট শুকনো খাবার হাতে এসে পৌঁছেছে। নিজ নিজ অবস্থান থেকে বন্যার্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে সমাজের বিত্তবানদের প্রতি তিনি আহবান জানান।
বালাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুস সাকিব সিলেট বাংলা নিউজেকে জানান, জরুরি বিত্তিতে আজ ১৫ জুলাই  ত্রান ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির জরুরী সভা আহবান করা হয়েছে যাতে ত্রানসামগ্রী দূর্গত এলাকায় দ্রুত পৌঁছানো যায় সেই সাথে বন্যা মোকাবেলায় আমরা সর্বদা প্রস্তুত রয়েছি।
গত শনিবারে পূর্বগৌরিপুর ও পূর্বপৈলনপুরের ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা পরিদর্শন করেছেন বালাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. নাজমুস সাকিব, সহকারী কমিশনার (ভুমি) সুমন চন্দ্র দাস।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৪৬ বার

Share Button

Callender

August 2019
M T W T F S S
« Jul    
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031