শিরোনামঃ-

» অত্যাবশ্যকীয় পরিষেবা বিল২০২৩ বাতিল ও নিম্নতম মজুরি ২০ হাজার টাকার যৌক্তিকতা শীর্ষক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ০৯. মার্চ. ২০২৪ | শনিবার

ডেস্ক নিউজঃ

বাংলাদেশ শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশন, সিলেট জেলার আয়োজনে শনিবার (৯ মার্চ)  সন্ধ্যা ৬টায় কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদ (সাহিত্য আসর কক্ষ) হলে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।
বাংলাদেশ শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশন সিলেট জেলার সভাপতি  মোখলেসুর রহমানের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক প্রসেনজিৎ রুদ্রের পরিচালনায় আলোচনা করেন, বাংলাদেশ শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি জহিরুল ইসলাম সাধারণ সম্পাদক উজ্জ্বল রায়, বাংলাদেশ শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশন, হবিগঞ্জ জেলা শাখার আহবায়ক শফিকুল ইসলাম, শ্রমিক অধিকার আন্দোলন এর কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সুশান্ত সিনহা, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট এর জেলা আহবায়ক আবু জাফর, রিকশা-ভ্যান-ইজিবাইক শ্রমিক সংগ্রাম পরিষদ এর জেলা সভাপতি প্রণব জ্যোতি পাল, চা শ্রমিক অধিকার আন্দোলন এর কেন্দ্রীয় আহবায়ক হৃদেশ মুদি, চা শ্রমিকের ১০ দফা বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক সবুজ তাঁতি।
মতবিনিময় সভার শুরুতে সংগঠনের পক্ষ থেকে লিখিত ধারণাপত্র উপস্থাপন করা হয়। পরবর্তীতে নেতৃবৃন্দ আলোচনায় অংশগ্রহন করেন।
প্রধান আলোচক জহিরুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশের শ্রমিকদের জন্য  নিম্নতম মজুরি ঘোষিত হয়নি স্বাধীনতার ৫৩ বছর পরেও।ফলে নামমাত্র মজুরিতে শ্রমিকরা কাজ করতে বাধ্য হয় যা দিয়ে একটি শ্রমিক পরিবার এক বেলাও ভালো করে খেতে পারে না, পরিবারের চিকিৎসা খরচ ও তাঁর সন্তানদের লেখা পড়ার খরচ মিটাতে পারে না।
ফলে সন্তানদের পড়ালেখা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যেই সমাপনি ঘটে, সকল রোগের চিকিৎসার জন্য পাড়ার ঔষধের দোকানই শেষ ভরসা।
মতবিনিময় সভার ধারণাপত্রে জাতীয় নিম্নতম মজুরি ২০ হাজার টাকার যৌক্তিকতা ব্যাখ্যা করে বর্তমান বাজারে একজন শ্রমিক পরিবার সহ খেয়ে পড়ে বাঁচতে হলে মাসে ২০ হাজার টাকার কমে কোনভাবেই চলতে পারে না।
শ্রমিকদের ন্যায় সঙ্গত দাবি আদায় করার জন্য মিছিল, মিটিং ও ধর্মঘট হলো আইন সঙ্গত অধিকার।
বর্তমান ফ্যাসিবাদী আওয়ামী লীগ সরকার ধর্মঘটের এ আইন সঙ্গত অধিকারকে চিরতরে বন্ধ করার জন্য অত্যাবশ্যকীয় পরিষেবা বিল ২০২৩ করেছে। যাতে শ্রমিক তাঁর ন্যায্য দাবি আদায় করার জন্য ধর্মঘট করতে না পারে।
এতে করে সরকার তার পুঁজিবাদী মালিক শ্রেণির দ্বারা শ্রমিক শ্রেণিকে অবাধ শোষণের ক্ষেত্র প্রস্তুত করে দিতে চায়।
যা কোনভাবেই করতে দেওয়া যায় না। তাই শ্রমিক স্বার্থবিরোধী পরিষেবা বিল ২০২৩ কে রুখার জন্য সকল সংগঠনের ঐক্যবদ্ধ সংগ্রামের কোন বিকল্প নেই।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩৯ বার

Share Button

Callender

April 2024
M T W T F S S
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930