শিরোনামঃ-

» সিলেটে ‘২১ শতকের শিক্ষক-যোগ্যতাভিত্তিক পেশাগত দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ক ধারণায়ন’ শীর্ষক নায়েম-এর আঞ্চলিক কর্মশালা সম্পন্ন

প্রকাশিত: ১২. আগস্ট. ২০২৩ | শনিবার

নতুন কারিক্যুলামের আলোকে শিক্ষকগণ একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করবেনই: বনমালী ভৌমিক

ডেস্ক নিউজঃ

লিডিং ইউনিভার্সিটির ট্রেজারার ও সরকারের অবসরপ্রাপ্ত অতিরিক্ত সচিব বনমালী ভৌমিক বলেছেন, সম্মানিত শিক্ষকগণ সমাজের সবচেয়ে সম্মানের ও শ্রদ্ধার পাত্র। শিক্ষকগণকে বর্তমান প্রযুক্তিনির্ভর যুগের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ, স্মার্ট এবং চতুর্থশিল্পবিপ্লবকে মোকাবেলা করার অধিকারী হতে হবে। যুগপোযোগী নতুন কারিক্যুলামের আলোকে শিক্ষকগণ একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করবেনই। তারা ভবিষ্যৎমুখী সুশিক্ষা প্রসারেও কার্যকরী ভূমিকা রাখবেন।

তিনি শনিবার (১২ আগস্ট) সিলেট নগরীর একটি অভিজাত হোটেলের বলরুমে অনুষ্ঠিত ”২১ শতকের শিক্ষক : যোগ্যতাভিত্তিক পেশাগত উন্নয়ন বিষয়ক ধারণায়ন” শীর্ষক একটি আঞ্চলিক কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখাকালে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের আওতাধীন ‘জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাপনা একাডেমি'(নায়েম)-এর আয়োজনে অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, ‘নায়েম’এর মহাপরিচালক প্রফেসর ড. মো. নিজামুল করিম।

বিশেষ অতিথি ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, সিলেটের চেয়ারম্যান প্রফেসর রমাবিজয় সরকার, মুরারিচাঁদ কলেজের অধ্যক্ষ আবুল আনাম মো: রিয়াজ এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা সিলেট অঞ্চলের পরিচালক প্রফেসর মো. আব্দুল মান্নান খান।

উক্ত কর্মশালার বিবেচ্য ও উদ্দেশ্য ছিলো, জাতীয় শিক্ষাক্রম রূপরেখা ২০২১, শিক্ষায় রূপান্তর, টেকনেলজিক্যাল এডভান্সমেন্ট ও শিক্ষা কার্যক্রমে এর ব্যবহার, জাতীয় উন্নয়ন অগ্রগতি অগ্রাধিকার ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত ও স্মার্ট বাংলাদেশ -এর পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষকের যোগ্যতাভিত্তিক পেশাগত দক্ষতা উন্নয়ন কাঠামো, পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে শিক্ষকের দায়িত্ব, কর্তব্য, ক্যারিয়ার পাথওয়ে ও ভবিষ্যতের শিক্ষক, শিক্ষক নিয়োগ এবং শিক্ষকের পেশাগত উন্নয়ন কাঠামো বা রূপরেখা সম্পর্কে মতবিনিময় ও ধারণা তৈরি করা।

সিলেট থেকে সর্বপ্রথম শুরু হওয়া এই আঞ্চলিক কর্মশালায় দিনব্যাপী ছিলো – একক কাজ, দুই কালারের ভিপ কার্ড ব্যবহারের মাধ্যমে দেয়ালে পেস্ট করা ও উপস্থাপন ও প্লেনারি আলোচনা, জাতীয় পর্যায়ের কর্মশালা থেকে প্রাপ্ত তথয়সমূহ থেকে উপস্থাপন ও প্লেনারি আলোচনা এবং ‘শিক্ষকতা পেশার আকর্ষণীয়করণ, প্রাক-নিয়োগ কার্যক্রম, প্রি-সার্ভিস টিচার এডুকেশন, শিক্ষক নিয়োগ ও পদায়ন : শর্তাবলি, প্রক্রিয়া ও প্রতিষ্ঠান, শিক্ষক প্রশিক্ষণ, ধারাবাহিক পেশাগত দক্ষাতা উন্নয়ন: মেয়াদ, প্রক্রিয়া ও প্রতিষ্ঠান, প্রেরণা, প্রণোদনা, পদোন্নতি ও ক্যারিয়ারপাথ এবং অবসর ও অবসর পরবর্তী সম্পৃক্ততা’ বিষয়ক ৫টি গ্রুপে দলীয় কাজ, দলীয় উপস্থাপন, প্লেনারি ও আলোচনা এবং অভিভাক ও শিক্ষার্থীদের জন্য প্রশ্ন/গাইড ইত্যাদি।

শিক্ষাক্রম রূপরেখা ২০২১ কার্যকর ও সফল বাস্তবায়নে শিক্ষকগণকে প্রস্তুতের মাধ্যমে শিক্ষাক্রম বাস্তবায়ন কার্যক্রমকে ত্বরান্বিত করা ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশের স্মার্ট নাগরিক তৈরির স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে যাত্রা অব্যাহত রাখার উদ্দেশ্যে অনুষ্ঠিত উক্ত আঞ্চলিক কর্মশালায় শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা সিলেট অঞ্চলের পরিচালক, উপ-পরিচালকসহ, সিলেট টিচার্স ট্রেনিং কলেজের অধ্যক্ষ সহ বিভিন্ন সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ/প্রতিনিধি, চার জেলার জেলা শিক্ষা অফিসার, সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধানগণ, মনোনীত উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার, বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, মনোনীত বিদ্যালয়/মাদ্রাসার শিক্ষক, কয়েকজন অভিভাবক ও শিক্ষার্থী সহ নায়েম-এর উর্ধ্বতন বিশেষজ্ঞ কর্মকর্তা/ফ্যাকাল্টিবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১২৭ বার

Share Button

Callender

June 2024
M T W T F S S
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930