শিরোনামঃ-

» ভূমিখেকো সন্ত্রাসী গুলজার বাহিনীর হাত থেকে বাঁচতে চান সাহারা আহমদ

প্রকাশিত: ১৩. মে. ২০২১ | বৃহস্পতিবার

নিজস্ব রিপোর্টারঃ

নগরীর শাহী ঈদগাহ আবাসিক এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা সাহারা আহমদ ও তাঁর পরিবারবর্গের উপর ভূমিখেকো ও জমির দালাল সন্ত্রাসী গুলজার ও তার বাহিনীর হাত থেকে জান-মালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন সাহারা আহমদ। নেশাখোর, মাদকসেবনকারী ও দু:চরিত্র প্রকৃতির লোক গুলজার গং কর্তৃক কাল্পনিক ঘটনা সাজিয়ে তাঁদের উপর দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারেরও দাবী জানান সাহারা আহমদ।

আজ বৃহস্পতিবার (১৩ মে) বিকেল ৪টায় নগরীর শাহী ঈদগাহ আবাসিক এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা সাহারা আহমদ ও তাঁর পরিবারবর্গের উপর জায়গা-জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মিথ্যা মামলা ও হামলার ঘটনায় সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের ড. রাগীব আলী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী সাহারা আহমদ এ সব কথাগুলো বলেন।

লিখিত বক্তব্যে সাহারা আহমদ বলেন, আমি শাহী ঈদগাহ আবাসিক এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা। আমি একজন গৃহিণী।

তিনি বলেন, বিগত ২০১৭ সাল থেকে ভূমিখেকো গুলজার গং আমাদের হয়রানি করে আসছে। আমাদের বিক্রিত জমির টাকা পরিশোধ না করে জোরপূর্বক সে ও তার পরিবার নিয়ে সেখানে বসবাস করছে এবং জালিয়াতী করে জায়গার দলিল রেজিস্ট্রিও করে ফেলেছে।

এ বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে আমাদের প্রাণে মারার হুমকি দেয়। এ নিয়ে এলাকার মুরুব্বীগণ শালিসী নিষ্পত্তির জন্য উদ্যোগ নিলে সে আসেনি। উল্টো কোতোয়ালি মডেল থানায় আমাদের বিরুদ্ধে দু’টি মিথ্যা মামলা দায়ের করে। সে আমাদেরকে আরো হুমকি দেয় যে, আমরা এ বিষয়ে কথা বললে আমাদেরকে খুন করে লাশ গুম করে ফেলবে।

সাহারা আহমদ বলেন, কোতোয়ালি থানায় দায়েরকৃত মামলাগুলো সম্পূর্ণ ভূয়া, ভিত্তিহীন ও কাল্পনিক। সে মামলায় উল্লেখ করছে তার বাক প্রতিবন্ধী দুটো বোনকে আমার ছেলে ও ভাই আঘাত করেছে। অথচ এ ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি। বরঞ্চ তার বোন দুটি বোবা নয়। ভাল মানুষকে বোবা সাজিয়ে আমাদের ফাঁসানোর চেষ্টা করছে গুলজার গং।

সাহারা আহমদ বলেন, আমার ছোট ভাই সেবুল আমাদের উপর অত্যাচারের প্রতিবাদ করায় আমার ভাইয়ের উপর গুলজার বাহিনী হামলা করে বিগত ১৮ মার্চ’২১ইং। সন্ত্রাসী হামলায় আমার ভাই গুরুতর জখম হলে আমরা নগরীর কাজলশাহ এলাকার আবুল হোসেনের ছেলে গুলজার আহমদ, তার বোন জোছনা আক্তার ও ফাহিমা আক্তার গং কে আসামী করে নগরীর এয়ারপোর্ট থানায় মামলা দায়ের করি। যার নম্বর ১/২৪,তাং ১/৪/২১ইং।আদালত গুলজার এর বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করলেও পুলিশ তাকে এখনো গ্রেফতার করেনি।

সংবাদ সম্মেলনে সাহারা বলেন, আমরা ইতোপূর্বে জান-মালের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় জিডি করেছি। জায়গা সংক্রান্ত মামলা আদালতে বিচারাধীন আছে।

পরবর্তীতে প্রতিপক্ষের হয়রানীতে আমাদের অবস্থা আরো শোচনীয় হলে এবং অব্যাহত হুমকীর দরুণ থানায় মামলা দিতে চাইল পুলিশ আমাদের অভিযোগ গ্রহণ করেনি।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আমরা এখন নিরুপায়, অসহায়। সন্ত্রাসী গুলজার গং এর খুন গুমের হুমকীতে প্রতিনিয়ত শংকার মধ্যেই আছি। যেকোন সময় সন্ত্রাসীরা আমাদেরকে মেরে ফেলতে পারে। তাই আমরা আপনাদের দ্বারস্থ হলাম।

সংবাদ সম্মেলনে সাহারা আহমদ অবিলম্বে কাল্পনিক, হয়রানীমুলক, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মিথ্যা মামলাগুলো প্রত্যাহারের জোর দাবী জানান।

এ ধরনের মামলা দিয়ে ভবিষ্যতে যাতে কেউ তাদের হয়রানি না করতে পারে এবং তাদের জান-মালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রশাসনের সুদৃষ্টিও কামনা করেন।

তিনি বলেন ,আমরা যে মামলা দিয়েছি এতে পুলিশের কোন তৎপরতা নেই। এ মামলার প্রতিপক্ষ আসামীগণ দিব্যি প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

গ্রেফতারী পরোয়ানা থাকা সত্ত্বেও এরা প্রতিনিয়ত আমাদের বসতঘরে ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে, উকিঝুকি মারে, আমার যুবতী মেয়েকে উত্ত্যক্ত করে। আমরা এদের হাত থেকে বাঁচতে চাই। তিনি এ সকল দোষীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে প্রশাসনের প্রতি জোর দাবী জানান।

সংবাদ সম্মেলনে সাহারা আহমদের পক্ষে লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন তাঁর ছেলে তারেক আহমদ। এসময় উপস্থিত ছিলেন সাহারা আহমদের ভাই সেবুল আহমদ।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ২৪৯ বার

Share Button

Callender

March 2024
M T W T F S S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031