শিরোনামঃ-

» এক সপ্তাহে আমেরিকায় করোনা পরিস্থিতির ভয়ংকর অবনতির চিত্র; বাড়বে মৃত্যুর সংখ্যা

প্রকাশিত: ৩১. মার্চ. ২০২০ | মঙ্গলবার

মাত্র এক সপ্তাহে পাল্টে গেছে আমেরিকার চিত্র

নিউইয়র্ক থেকে এমদাদ চৌধুরী দীপুঃ

নিউইয়র্ক, মঙ্গলবার (৩১ মার্চ, ২০২০)

পাল্টে গেছে নিউইয়র্ক সহ আমেরিকার ৫০টি অঙ্গরাজ্যের জীবন যাত্রার দৃশ্যপট।

এক সপ্তাহে এখানে আক্রান্ত রোগী বেড়েছে প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার, আর মৃতের সংখ্যা বেড়েছে আড়াই হাজারেরও উপরে।

এই সপ্তাহেই আক্রান্ত রোগী বিবেচনায় বিশ্বের সব দেশকে টপকে শীর্ষ করোনা আক্রান্ত দেশের আখ্যা পেয়েছে আমেরিকা।

আমেরিকায় আগামী সপ্তাহে মৃত্যুর সংখা আরো বাড়ার আশংকা থাকলেও কমে আসবে আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা।

এছাড়া আরোগ্য হওয়ার হার বাড়তে পারে বলে মনে করছে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন মহল।

এদিকে চিকিৎসক এবং নার্স সহ স্বাস্থ্য সেবার লোক কমে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে আমেরিকায় করোনা পরিস্থিতির প্রত্যাশিত উন্নতি হচ্ছেনা বলে মনে করেন অনিচ্ছুক অনেক বাংলাদেশী চিকিৎসক।

এক সপ্তাহে ২১ জন বাংলাদেশীর মৃত্যুতে দেশ এবং সারা বিশ্বে বসবাসরত বাংলাদেশীদের মাঝে বিরাজ করছে শোক আর সমবেদনা।

রোজা পালন, নফল নামাজ, কোরআন খতম, বড় তসবিহ সহ নানাভাবে এবাদত বন্দেগীর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশী সহ বিশ্বের সকল মানুষের করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তির জন্য দোয়া করছেন বাংলাদেশীরা।

আমেরিকায় বসবাসরত বাংলাদেশীদের প্রতিটি বাড়ি-ঘর এখন একেকটি এবাদতখানায় পরিণত হয়েছে।

সবার একটাই আকুতি মহামারী থেকে মুক্তি।

তবে অনেক হতাশার মাঝে আশার কথা হচ্ছে রোগ থেকে মুক্তির সংখ্যাও বাড়ছে।

এই সপ্তাহে ৫ হাজার রোগী করোনা থেকে মুক্তি পেয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এক সপ্তাহ আগে আমেরিকায় আক্রান্ত রোগী ছিলো ৪৪ হাজার ৪৪৩ জন আর বর্তমানে ১ লক্ষ ৬৪ হাজার জন।

এক সপ্তাহ আগে মৃতের সংখ্যা ছিল ৫১৭ জন, বর্তমানে সেই সংখ্যা ৩ হাজার ১৪৮ জন।

সপ্তাহ শেষে আরোগ্য হওয়া রোগীর সংখ্যা ৫ হাজার ৫০৬ জন এই সংখ্যা গত ২৩ মার্চ সোমবার ছিলো ২৯৫ জন।

গত এক সপ্তাহে অস্বাভাবিক রোগী এবং মৃত্যুর ঘটনা সব অঙ্গরাজ্যে ছড়িয়েছে।

মৃত্যুর মিছিল কোন ভাবেই থামানো যাচ্ছেনা। পুরো আমেরিকা জুড়ে এমন নাজুক পরিস্থিতি বিরাজ করছে যা অতীতে কেউ দেখেনি কিংবা শুনেনি।

৫০ অঙ্গরাজ্যের মধ্যে যে সব অঙ্গরাজ্যে মৃত্যু এবং আক্রান্ত রোগী বেশী সে তালিকায় রয়েছে নিউইয়র্ক, নিউজার্সী, ওয়াশিংটন, কেলিফোর্নিয়া, মেসাজুসেট, ইলিনইস, পেনসেলভেনিয়া, ইন্ডিয়ানা, মিশিগান, ফ্লোরিডা।

এছাড়া অন্যান্য অঙ্গরাজ্যগুলো আক্রান্ত এবং মৃত্যু সবই উদ্বেগ এবং আতংক সৃস্টিকারী সকল দেশ, সকল মহল, সকল ধর্ম-বর্নের মানুষের জন্য।

নিউইয়র্কঃ
২৩ মার্চ নিউইয়র্কে আক্রান্ত রোগী ছিলো ২০ হাজার ৮৭৫ জন, বর্তমানে ৫ হাজার ৯১৩ জন। আজ মৃতের সংখ্যা ১ হাজার ৩৪২ জন যা ২৩ মার্চ ছিলো ১৫৭ জন। পুরো সপ্তাহ নিউইয়র্ক লকডাউন ছিলো এবং সেটি ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।

নিউজার্সীঃ
নিউজার্সীতে এখন আক্রান্তের সংখ্যা ১৩ হাজার ৩৮৬ জন, যা সপ্তাহ আগে ছিলো ২ হাজার ৮৪৪ জন। মৃতের সংখ্যা আজ ১৯৮ জন, এক সপ্তাহ আগে ছিলো ২৭ জন।

ওয়াশিংটনঃ
৪ হাজার ৩৯২ জন আক্রান্ত রোগী রয়েছেন ওয়াশিংটনে, মারা গেছেন ২০২ জন। এক সপ্তাহে আগে সে চিত্র ছিল আক্রান্ত ১ হাজার ৯৯৬ জন, মৃত্যু ৯৫ জন।

মিশিগানঃ
মিশিগান অঙ্গরাজ্যে এ যাবত করোনা আক্রান্ত সনাক্ত হয়েছে ৬ হাজার ৪৯৮ জন, আর মারা গেছেন ১৮৪ জন। মাত্র এক সপ্তাহে নাজুক মিশিগান অঙ্গরাজ্যে করোনা ভাইরাস চিত্র। সপ্তাহ শেষে এখানে ১৭০ জন রোগীর মৃত্যু যুক্ত হয়েছে। ২৩ মার্চ ছিলো মাত্র ১৫ জন মারা যাওয়ার খবর। আক্রান্ত ছিলো ১ হাজার ৩২৮ জন। আক্রান্ত রোগী বেড়েছে ৫ হাজার।

কেলিফোর্নিয়াঃ
কেলিফোর্নিয়ায় মারা গেছেন ১৪৫ জন, আক্রান্ত রোগী ৫ হাজার ৮৪৬ জন। যা এক সপ্তাহে আগে ছিলো মৃত্যু ৩৮ জন, আক্রান্ত রোগী ১ হাজার ৯৪৬ জন।

মেসাজুসেটঃ
মেসাজুসেট অঙ্গরাজ্য আলোচনায় আক্রান্ত ৪ হাজার ৯৫৫ জন রোগীর কারনে, এই অঙ্গরাজ্যে মারা গেছেন ৫৬ জন। মাত্র এক সপ্তাহে পরিবর্তন অন্যান্য অঙ্গরাজ্যের মতো বিস্ময়কর। ২৩ মার্চ রোগী ছিলো ৭৭৭ জন, আর মৃত্যু ছিলো মাত্র ৭ জন।

ইলিনইসঃ
এই অঙ্গরাজ্য এখন ৫ হাজার ৫৭ জন করোনা রোগীর যন্ত্রনায় কাতর, এখানে মারা গেছেন ১৯৮ জন। অথচ এক সপ্তাহ আগে ১ হাজার ২৮৫ জন রোগী সনাক্ত হয়েছিল, মারা গিয়েছিল ২৭ জন।

পেনসেলভেনিয়াঃ
পেনসেলভেনিয়া অঙ্গরাজ্যে ৪ হাজার ১৫৪ জন করোনা রোগী সনাক্ত হয়েছে, মারা গেছেন ৫১ জন। যা এক সপ্তাহ আগের রেকর্ডে আছে আক্রান্ত ৮৫১ জন, মৃত্যু ৭ জন।

ইন্ডিয়ানাঃ
ইন্ডিয়ানা অঙ্গরাজ্যে আক্রান্ত রোগী ১৭৮৬ জন, মারা গেছেন ৩৫ জন। ৩ গুন বৃদ্ধি পেয়েছে মৃত্যু।এক সপ্তাহ আগে যা ছিলো আক্রান্ত ৩৬৫ জন মৃত্যু ১২ জন।

ফ্লোরিডাঃ
ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে আক্রান্ত ৫ হাজার ৭০৪ জন, ২৩ মার্চ যা ছিলো ১১৭১ জন। এক সপ্তাহ আগে মারা গেছেন ১৪ জন, বর্তমান মৃত্যু ৭১ জন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৭৪৯ বার

Share Button

Callender

March 2024
M T W T F S S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031