শিরোনামঃ-

» জামায়াতের সংস্কারপন্থীদের নতুন দল ‘এবি পার্টি

প্রকাশিত: ০৩. মে. ২০২০ | রবিবার

সিলেট বাংলা নিউজ ডেস্কঃ

‘জন আকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশকে ’ রিসার্চ উইং হিসেবে রেখে ‘আমার বাংলাদেশ পার্টি (এবি পার্টি)’ নামের নতুন রাজনৈতিক দল গঠন করেছেন জামায়াতে ইসলামীর সংস্কারপন্থীরা।

নতুন দল এবি পার্টির আহ্বায়ক হয়েছেন এ এফ এম সোলায়মান চৌধুরী ও সদস্যসচিব হয়েছেন মুজিবুর রহমান মঞ্জু।

শনিবার (২ মে) দুপুরে রাজধানীর বিজয় নগরে এবি পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে মুজিবুর রহমান মঞ্জু নতুন দলের নাম ঘোষণা করেন।

মঞ্জু বলেন, ‘সমালোচকদের তীর্ষক ভ্রূকুটি উপেক্ষা করে আমরা ঘোষণা করছি, আজ থেকে আমাদের দলের নাম “আমার বাংলাদেশ পার্টি”—এবি পার্টি। আমরা মনে করি, একাত্তর সালের স্বাধীনতাযুদ্ধ ও বিজয় আমাদের জাতীয় ঐক্যের অন্যতম পাটাতন। এবি পার্টি সেই পাটাতনকে সুদৃঢ় ভিত্তির ওপর দাঁড় করাতে বদ্ধপরিকর।’

নতুন দল এবি পার্টির প্রধান দুই নেতাই জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নীতিনির্ধারণী পর্ষদ মজলিসে শুরার সদস্য ছিলেন। এর মধ্যে একাত্তর সালে জামায়াতে ইসলামীর ভূমিকা এবং দলের সংস্কার নিয়ে ভিন্নমতের কারণে মুজিবুর রহমানকে জামায়াত গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে বহিষ্কার করে। আর সোলায়মান চৌধুরী গত ডিসেম্বরে জামায়াত ছেড়ে আসেন দলের সংস্কারসহ বিভিন্ন বিষয়ে মতপার্থ্যকের কারণে।

মুক্তিযুদ্ধের সময়ের ভূমিকা ও দলের সংস্কার প্রশ্নে মতবিরোধের কারণে গত বছরের ১৪ ফ্রেব্রুয়ারি জামায়াত থেকে ইস্তফা দেন দলের জ্যেষ্ঠ সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল ও বিশিষ্ট আইনজীবী আবদুর রাজ্জাক। গুঞ্জন আছে, নতুন দল গঠনের নেপথ্যে কাজ করছেন আবদুর রাজ্জাক।

এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন এক প্রশ্নের জবাবে মুজিবুর রহমান বলেন, ‌‘আমরা যখনই তাঁর সাহায্য ও পরামর্শ চেয়েছি, তিনি আমাদের যথাযথ পরামর্শ দিয়েছেন, সহযোগিতা করেছেন।

আবদুর রাজ্জাক ছাড়াও দেশের জ্যেষ্ঠ নাগরিক, বুদ্ধিজীবী সহ অনেকে পরামর্শক হিসেবে আমাদের সঙ্গে যুক্ত আছেন। তাঁদের কেউ না কেউ কোন না কোন সময়ে সরাসরি আমাদের নেতৃত্বে আসতে পারেন।’

এবি পার্টির আহ্বায়ক সোলায়মান চৌধুরী সরকারের একজন সাবেক সচিব।

তিনি জামায়াতের পেশাজীবীদের সংগঠন জাতীয় পেশাজীবী ফোরামের সভাপতি ছিলেন।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে তিনি কুমিল্লা-৯ আসনে জামায়াতের প্রার্থী ছিলেন। তবে সোলায়মান চৌধুরী বিশেষভাবে আলোচিত ২০০১ সালে খালেদা জিয়ার সরকারের সময় ফেনীর জেলা প্রশাসক থাকাকালে সন্ত্রাসের অভিযোগে আওয়ামী লীগের সাবেক সাংসদ জয়নাল হাজারীর বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে। সে সময় হাজারী দেশ থেকে পালিয়ে যান।

আর মুজিবুর রহমান জামায়াতের ছাত্র সংগঠন ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ছিলেন। পরে জামায়াতের গণমাধ্যম হিসেবে পরিচিত অধুনা বিলুপ্ত দিগন্ত টেলিভিশন চ্যানেলের উপ নির্বাহী পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন।

সংবাদ সম্মলেন বলা হয়, ‘সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক সুবিচার’—এই তিন মূলনীতির ভিত্তিতে চলবে আমার বাংলাদেশ পার্টি।

নতুন দলের নাম ঘোষণার পাশাপাশি ২২২ সদস্যের এবি পার্টির আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়, যাঁদের অধিকাংশই জামায়াতে ইসলামী ও ছাত্রশিবিরের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।

মঞ্জু বলেন, আহ্বায়ক কমিটির দায়িত্ব হবে সব জেলায় কমিটি গঠন করা, দলের খসড়া গঠনতন্ত্র চূড়ান্ত করা এবং দ্রুততম সময়ে গণতান্ত্রিক ও গঠনতন্ত্র অনুযায়ী জাতীয় কনভেনশন করে দলের নেতৃত্ব নির্বাচন করা।

নতুন দলের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য তুলে ধরেন এবি পার্টির অন্যতম যুগ্ম আহ্বায়ক অবসরপ্রাপ্ত মেজর আব্দুল ওহাব মিনার।

তিনি বলেন, ‘ধর্ম–বর্ণ–জাতিনির্বিশেষে’ প্রতিটি মানুষের মৌলিক ও নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করার মাধ্যমে বাংলাদেশকে একটি “কল্যাণ রাষ্ট্রে উন্নীত করা” হবে এ সংগঠনের উদ্দেশ্য।’

এবি পার্টির ৭ দফা কর্মসূচিতে বলা হয়, জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা, গণতন্ত্র ও মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠা, প্রেরণা সৃষ্টি, উন্নয়ন ও গবেষণা, নেতৃত্ব তৈরি, সামাজিক এবং রাষ্ট্রীয় সংস্কার ও কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় কাজ করবে এ দল।

নতুন দল গঠনের বিষয়ে জামায়াতের কোন নেতা মন্তব্য করতে রাজি হননি। তবে জামায়াতের রাজনীতির পর্যেবক্ষক ও চিন্তাশীল ব্যক্তি সাবেক সচিব শাহ আবদুল হান্নান নতুন দলটির ভালো ভবিষ্যৎ দেখেন না।

তিনি সাংবাদিককে বলেন, ‘বর্তমানে রাজনীতির যে দৃশ্য, তাতে নতুন কোন দলের প্রয়োজনীয়তা দেখি না।

দেশে ইসলামি, বাম, জাতীয়তাবাদী—সব ধরনের রাজনৈতিক দলই আছে, কােন জায়গা তো খালি নেই। আমার মনে হয় না তারা ভালো করতে পারবে। তবু তারা করেছে, এখন আমরা সামনে দেখব কী হয়।’

মুক্তিযুদ্ধের সময়ের ভূমিকা ও দলের সংস্কার প্রশ্নে মতবিরোধের কারণে গত বছরের ১৪ ফ্রেব্রুয়ারি জামায়াত থেকে ইস্তফা দেন দলের জ্যেষ্ঠ সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল ও বিশিষ্ট আইনজীবী আবদুর রাজ্জাক, যিনি যুদ্ধাপরাধের মামলায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবু্নালে জামায়াত নেতাদের প্রধান আইনজীবী ছিলেন।

বর্তমানে আবদুর রাজ্জাক লন্ডনে নির্বাসিত। তাঁর পথ অনুসরণ করায় ফেব্রুয়ারিতেই জামায়াত বহিষ্কার করে মুজিবুর রহমানকে।

এরপর জামায়াত থেকে বেরিয়ে কিছু নেতা-কর্মীকে নিয়ে ২০১৯ সালের ২৭ এপ্রিল সংবাদ সম্মেলন করে ‘জন আকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ’ নামে ওই প্ল্যাটফর্ম গঠন করে তিন মাসের মধ্যে নতুন দল গঠনের ঘোষণা দিয়েছিলেন মুজিবুর রহমান।

এক বছর পর শনিবার নতুন দলের ঘোষণা এল।

সংবাদ সম্মেলনের মঞ্চে ছিলেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে জামায়াত নেতাদের আইনজীবী তাজুল ইসলাম, আইনজীবী যোবায়ের আহমদ ভুঁইয়া, আইনজীবী আসাদুজ্জামান ফুয়াদ প্রমুখ।

আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণার আগ পর্যন্ত এ এফ এম সোলায়মান চৌধুরী অতিথির আসনে বসা ছিলেন। কমিটি ঘোষণার পর তিনি মঞ্চে আসেন।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১২৮ বার

Share Button

Callender

August 2020
M T W T F S S
« Jul    
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31